ময়মনসিংহ - ১৭ই মে, ২০২১ || ৩রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮

শিরোনাম

নালিতাবাড়ীতে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম বৃদ্ধিতে বিপাকে সাধারণ মানুষ

fullbaria news

আমিরুল ইসলাম : নালিতাবাড়ী (শেরপুর)
শেরপুরের নালিতাবাড়ী উপজেলায় দিন-দিন নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য মূল্য বৃদ্ধিতে দিশেহারা হয়ে পড়েছে নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষ। অন্যদিকে কার্তিক মাসের মঙা সময়ে জিনিস পত্রের দাম বাড়ায় বিপাকে সাধারণ মানুষ।
বিভিন্ন হাট-বাজার ঘুরে জানাযায়, উপজেলা শহর ছাড়াও ১২টি ইউনিয়নের ছোট-বড় হাট-বাজার গুলিতে অস্বাভাবিক হারে বেড়ে গেছে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস দাম। এমনিতেই কার্তিক মাস আসলেই নালিতাবাড়ী উপজেলায় আকাল (মঙা) শুরু হয়। এসময় কোন কাজ থাকেনা শ্রমজীবী মানুষদের। দেখা দেয় নানা অভাব। সাথে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধিতে দিশেহারা নিম্ন আয়ের লোকজন। বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রতি কেজি পিয়াজ ৯০ টাকা,আলু ৫০ টাকা,রসুন ১১০ টাকা, কাঁচা মরিচ ১২০ টাকা,পেঁপে ৫০ টাকা,ঢ়েরস ৬০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা,করলা ৭০ টাকা,সিম ১২০ টাকা,শসা ৫০ টাকা,পুঁইশাক ৩০ টাকা,বরবটি ৪৫ টাকা,পটল ৬০ টাকা,লাউ-কুমড়া প্রতি পিস ৪০-৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। যা আগের তুলনায় দ্বিগুণ। কোন দোকানেই দ্রব্য মুল্য তালিকা টাঙাতে দেখা যায়নি। নালিতাবাড়ি পৌর কাঁচা বাজারে আসা রাব্বি হাসান ও নন্নী বাজারে আসা ফজলুল করিম অপু বলেন,বর্তমানে কাঁচা বাজারে গেলে পকেট ফাঁকা হয়ে যায়। যেভাবে জিনিসপত্রের দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে তাতে আমাদের মত নিম্নআয়ের মানুষদের দুর্ভোগ অনেক। সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বাজার মনিটরিং না করাতে দাম বৃদ্ধি পাচ্ছে। ভোক্তাধিকার দায়িত্বে থাকা কোন কর্তাব্যাক্তিদের হাটবাজারে দেখা যায়না।ফলে ব্যবসায়ীরা দাম বেশী নিচ্ছে। জানতে চাইলে-কাঁচামাল ব্যবসায়ি রকিবুল হাসান অক্কু,আমিনুল ইসলাম, তোফাজ্জল হোসেন জানায়-করোনা সংকট,বর্ষা সহ বিভিন্ন পন্য সংকটে কিছুটা বেড়েছে। আমরা বাড়তি দামে ক্রয় করি তাই বাড়তি দামে বিক্রি করতে হয়। সচেতন মহল অনতিবিলম্বে দ্রব্য মূল নিয়ন্ত্রণে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

এই বিভাগের আরও খবর