ময়মনসিংহ - ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ || ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭

শিরোনাম

শেরপুরের সীমান্তের গাড়ো পাহাড়ে মালটা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা

শেরপুরের সীমান্তের গাড়ো পাহাড়ে মালটা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা

মুহাম্মদ আবু হেলাল(শেরপুর প্রতিনিধি):

শেরপুর জেলার সীমান্তবর্তী গারো পাহাড়ে মালটা চাষের উজ্জল সম্ভাবনা রয়েছে।খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ইতিপূর্বে যারা মালটা চাষ করেছেন এখনতাদের বাগানে মালটা হাসি ছড়াচ্ছে। পাহাড়ি উঁচু নিচু টিলা আর টিলা ঘেষা জমিতে অনেকেই এখন ঝুঁকছে মাল্টা চাষের দিকে। ফলটি খুব লাভজনক ও সুস্বাদু হওয়ায় জেলার সীমান্তবর্তী ঝিনাইগাতী ও নালিতাবাড়ী উপজেলাসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় ছড়িয়ে পড়ছে মালটা চাষ। শেরপুর জেলার সীমান্তবর্তী গারো পাহাড়ি অঞ্চলের মাটি সুনিষ্কাশিত, উর্বর, মধ্যম থেকে দোঁ-আশ এবং এখানকার আবহাওয়া শুষ্ক ও উষ্ণ হওয়ায় এখানে সাইট্রাস (লেবু) জাতীয় ফল চাষের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় কৃষি বিভাগের কর্মকর্তারা। আর এ জাতীয় ফল বিশেষ করে লেবু ও মালটা চাষ করে পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার পাশাপাশি বিপুল পরিমাণ অর্থ আয় করার পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা সম্ভব। জানা গেছে, গত তিন বছর আগে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের সাইট্রাস ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের আওতায় লেবু ও মালটা চাষ করে সফলতা পেয়েছেন উদ্যোক্তা আব্দুল বাতেন। বাতেন উপজেলার হলদী গ্রাম এলাকার মৃত মফিজ উদ্দিনের ছেলে। তিনি পেশায় সরকারি গাড়ি চালক। আরো নতুন উদ্যোক্তা তৈরি হলে এবং সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পাওয়া গেলে, এ অঞ্চলে লেবু ও মালটা চাষে বিপ্লব ঘটবে।এছাড়া এই বিদেশী ফলটি দেশে উৎপাদন করে বিদেশে রপ্তানি করা সম্ভব বলে মনে করেন মালটা চাষী আব্দুল বাতেন।এতে এ অঞ্চল অর্থনৈতিক ভাবে সমৃদ্ধ হওয়ার নতুন দ্বার উন্মোচন হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এই বিভাগের আরও খবর